ডিজিটাল মার্কেটিং এর যত উপায় সবগুলো জানেন কি?

0

ডিজিটাল মার্কেটিং একক শব্দ হিসেবে জনপ্রিয় হলেও এর ব্যবহারিক পরিধি অনেক বড়। এই ক্ষেত্রে ভাল করতে, অনেক বিপণনকারী নির্দিষ্ট কিছু ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ নিয়োগ করে থাকে। এই ইনফোটিতে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং এবং কেন সেগুলি গুরুত্বপূর্ণ সে সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।


ডিজিটাল মার্কেটিং এর যত উপায় সবগুলো জানেন কি?


বিপণন বা মার্কেটিং হল গ্রাহকদের কাছে মূল্য সনাক্তকরণ, যোগাযোগ এবং সরবরাহ করার প্রক্রিয়া। এটি ব্যবসার জন্য বিদ্যমান এবং সম্ভাব্য গ্রাহকদের সাথে লাভজনক দীর্ঘমেয়াদী সম্পর্ক তৈরি, নির্মাণ বা বজায় রাখার লক্ষ্যে কার্যক্রমের একটি পরিসেবা। এই প্রক্রিয়ায় প্রতিষ্ঠানের বিপণন লক্ষ্য অর্জনের জন্য একটি কোম্পানির মধ্যে সমস্ত কার্যক্রম সমন্বয় করা জড়িত।


ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

সহজ ভাষায়, ডিজিটাল মার্কেটিং হল ডিজিটাল ডিভাইসে (যেমন, কম্পিউটার এবং মোবাইল ফোন) কোনো পণ্য বা পরিষেবার প্রচার। উদাহরণস্বরূপ, আপনি Facebook ব্রাউজ করার সময় কিছু স্পন্সর পোস্ট দেখতে পারেন। এগুলো ডিজিটাল মার্কেটিং এর অংশ।


ডিজিটাল মার্কেটিং কত প্রকার?

বিপণন চ্যানেল এবং বিষয়বস্তুর প্রকারের উপর ভিত্তি করে ডিজিটাল বিপণনের প্রকারভেদ হয়। ডিজিটাল মার্কেটিংকে একটি নির্দিষ্ট সংখ্যায় ভাগ করা যায় না কারণ সেগুলি প্রায়শই আন্তঃসম্পর্কিত হয়। যাইহোক, এই নিবন্ধে, কিছু সাধারণ অংশ আলোচনা করা হবে।

ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে “ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করবেন” ইনফোটি দেখুন।


সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং হল ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইটার সহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে পণ্য বা পরিষেবার প্রচার।


সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কেন গুরুত্বপূর্ণ?

সোশ্যাল মিডিয়া প্রায় সব বয়সের মানুষের কাছে জনপ্রিয়। স্বল্প খরচে এবং অল্প সময়ে বিপুল সংখ্যক গ্রাহকের কাছে পণ্য বা সেবা সহজে প্রচার করা সম্ভব।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে “সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি?” ইনফোটি দেখুন।


সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান

সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান (SEO) হল একটি বিশেষ কার্যকলাপ যা Google, Bing, Yahoo সহ বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনে যেকোনও পণ্য, পরিষেবা এবং ওয়েবসাইট খুঁজে পাওয়া সহজ করার জন্য করা হয়। এটি একটি দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া।


কেন সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান গুরুত্বপূর্ণ?

প্রত্যেক ইন্টারনেট ব্যবহারকারী সার্চ ইঞ্জিনে কোনো না কোনো বিষয়ে তথ্য অনুসন্ধান করে। যদি সেই তথ্যটি আপনার পণ্য বা পরিষেবার সাথে সম্পর্কিত হয়, তাহলে আপনি অবশ্যই ব্যবহারকারীকে আপনার পণ্য বা পরিষেবা সম্পর্কে জানতে চান। কিন্তু আপনার মতো আরও অনেকে একই পণ্য বা পরিষেবা অফার করছে। সেক্ষেত্রে আপনার লক্ষ্য হবে সার্চ ইঞ্জিনের ফলাফলের শীর্ষে থাকা। এর জন্য প্রয়োজন সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন।

আরো জানুন: কিভাবে একটি ব্লগ পোস্ট দ্রুত ইনডেক্স করবেন?


সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (SEM) বলা হয় সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (SEM) যদি সরাসরি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রচারণা চালানো হয় যাতে যে কেউ সহজেই Google, Bing, Yahoo সহ বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনে যেকোনো পণ্য, পরিষেবা এবং ওয়েবসাইট খুঁজে পেতে পারে। এটি প্রয়োজনীয়তা এবং বাজেটের উপর নির্ভর করে একটি স্বল্পমেয়াদী বা দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া হতে পারে।


সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং কেন গুরুত্বপূর্ণ?

যেহেতু সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান একটি দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া, তাই এটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা এবং সতর্কতার সাথে বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন। কিন্তু আপনার পণ্য বা পরিষেবার বিক্রয় বাড়ানোর জন্য আপনার কাছে ততটা সময় নাও থাকতে পারে। এই ক্ষেত্রে, সার্চ ইঞ্জিনে অর্থ ব্যয় এবং বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে, আপনি তুলনামূলকভাবে অল্প সময়ের মধ্যে আপনার প্রচারের ফলাফল পেতে পারেন।

আরো জানুন: গুগল সার্চ ইঞ্জিন কি? এটি কিভাবে কাজ করে?


ইমেইল - মার্কেটিং

ইমেইল মার্কেটিং হল ইমেইলের মাধ্যমে কোন পণ্য বা সেবার প্রচার। এটি একটি দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া। সাধারণত, একটি অনলাইন ফর্মের মাধ্যমে, আপনাকে এই উদ্দেশ্যে সম্ভাব্য ক্রেতাদের ইমেল ঠিকানা সংগ্রহ করতে হবে। তবে আমাদের দেশে এর ব্যবহার এখনো সীমিত। আরো জানুন: ফিশিং ইমেইল কি?


কেন ইমেইল মার্কেটিং গুরুত্বপূর্ণ?

বেশিরভাগ ভোক্তা অনলাইন প্রচার এবং বিজ্ঞাপন সম্পর্কে সন্দিহান। তাই নিয়মিত ইমেইল আপনার পণ্য বা পরিষেবার প্রতি তাদের আস্থা অর্জনে ভূমিকা রাখতে পারে।

আরো জানুন: ফেসবুক মার্কেটিং কি? কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করবেন?


অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হল একটি পণ্য বা পরিষেবা সরাসরি বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করার একটি প্রচারাভিযান। সাধারণত, আমাজন বা দারাজের মতো ই-কমার্স সাইটগুলিতে পণ্য এবং পরিষেবার ক্ষেত্রে এই বিপণনের ব্যাপক ব্যবহার রয়েছে। যাইহোক, এটি সরাসরি বিক্রি হওয়া অন্য কোন পণ্য বা পরিষেবার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হতে পারে।


কেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং গুরুত্বপূর্ণ?

কোনো পণ্য বা সেবা কেনার আগে গ্রাহকরা এর গুণমান সম্পর্কে জানতে চান। পর্যালোচনার মাধ্যমে তাদের ভালো-মন্দ সম্পর্কে অবহিত করা সম্ভব। যদি কেউ আপনার অ্যাফিলিয়েট লিঙ্কে ক্লিক করে এবং আপনার পর্যালোচনা পড়ার পরে সেই পণ্য বা পরিষেবাটি কিনে, আপনি লাভের একটি অংশ পাবেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং তাই কম সময়ে ক্রেতাদের আস্থা অর্জনে ভূমিকা রাখতে পারে।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে “অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি এবং কিভাবে করবেন” ইনফোটি দেখুন।


মোবাইল মার্কেটিং

মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে পণ্য বা পরিষেবার প্রচার করাকে মোবাইল মার্কেটিং বলা হয়। উল্লেখ্য যে উপরের সমস্ত ধরণের মার্কেটিং মোবাইলের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। এছাড়া এসএমএস পাঠিয়েও মোবাইল মার্কেটিং করা সম্ভব।


কেন মোবাইল মার্কেটিং গুরুত্বপূর্ণ?

মোবাইল ফোন বর্তমান সময়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় ডিজিটাল ডিভাইস। মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে। এর মাধ্যমে প্রচারণা চালালে লাভের সম্ভাবনা বেশি।


অন্যান্য ইনফো জানুন:

ই-কমার্স কি? কিভাবে ই-কমার্স সাইট তৈরি করবেন?

কেন ডিজিটাল মার্কেটিং শিখবেন?

বাংলাদেশ থেকে পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলবেন?

গুগল এডস কি?

ফেসবুক প্রোফেশনাল মোড কি?

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)


#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !