ফেসবুক মার্কেটিং (Facebook Marketing) কিভাবে করবেন? বাংলাদেশে কেন এটি জনপ্রিয়?

0

বর্তমান এই প্রযুক্তির যুগে ব্যবসা-বাণিজ্যে সফলতা পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই অনলাইন মার্কেটিং আসতে হবে। নতুবা কোন ভাবেই সফলতার উচ্চ শিখরে উঠতে পারবেন না। অনলাইন মার্কেটিং এর ব্যপক পরিধি আছে। যেমন: ইমেইল মার্কটিং, সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ব্লগ মার্কেটিং, কনটেন্ট মার্কেটিং ইত্যাদি। সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মধ্যে Facebook Marketing: ফেসবুক মার্কেটিং সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়।

আজকের ইনফোতে Facebook Marketing: ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করবেন? সেই বিষয়ে আলোচনা করা হলো।

Facebook Marketing: ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করবেন?
ফেসবুক মার্কেটিং কি? কিবাবে করবেন। ছবি: পেকজেলসডটকম

ফেসবুক মার্কেটিং হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি পাট। ডিজিটাল মার্কেটিং এর পরিধি ইন্টারনেট দুনিয়ার সকল মার্কেটিংকে বুঝায়।

ফেসবুক হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। কোটি কোটি দর্শক রয়েছে প্রতিদিন ফেসবুকে সময় ব্যায় করছে।

প্রথম দিকে ব্যাক্তিগতভাবে ফেসবুক ব্যবহার করলেও বর্তমানে বেশি ব্যবহার করা হচ্ছে ব্যবসায়িক কজে। এমন কোন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান নাই যে, তার কোন ফেসবুক পেজ নেই।

ফেসবুকের ব্যবহারকারী প্রচুর হওয়ায় বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান আমাদের কাছে খুব সহজেই তাদের বিভিন্ন পন্য পৌছে দিচ্ছে।

কিভাবে আপনি সহজেই আপনার ব্যবসার জন্য ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারেন তার ধারণা দেওয়ার জন্য আজকের এই ইনফোটি শেয়ায় করা হলো।


ফেসবুক মার্কেটিং কি? (What is Facebook Marketing)


ফেসবুক মার্কেটিং কি? তখনি ভাল করে বুঝতে পারবেন, যখন আপনি মার্কেটিং কি তা ভাল করে বুঝবেন।

মার্কেটিং কি সেটাই যদি আপনি না জাননে তাহলে ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে বুঝবেন?

ফেসবুক মার্কেটিং বুঝার আগে আপনাকে আগে মার্কেটিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং বুঝতে হবে। তাহলে সহজেই আপনি ফেসবুকমার্কেটিং বুঝতে পারবেন।

আসুন আগে মার্কেটিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং কি তা জেনে নেই।

মার্কেটিং (Marketing) কি

আদিকাল থেকে মানুষ তার ব্যবসা মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে আসছে। যেমন- পোস্টাল, ফেসটুন, রেডিও-টেলিভেশনে প্রচার ইত্যাদি।

তাই বলা যায় ব্যবসা উন্নতির জন্য কোন কোম্পানী বা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান তাদের পন্য বা প্রডাক্ট বিক্রির জন্য বিজ্ঞাপন বা প্রচারের মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌছে দেয়াকে মার্কেটিং বলে।

বর্তমান সময়ে যে কোন পণ্য, সেবা বা প্রডাক্ট মানুষের কাছে পৌছাতে ডিজিটাল টেকনিক অবলম্বন করা হয়।

আরো জানুন:






ডিজিটাল মার্কেটিং (Digital Marketing) কি?

এক সময় ব্যবসায়িরা তাদেন পন্য বিক্রয়ের জন্য রাস্তার মোরে মোরে ব্যানার, ফেসটুন দিয়ে রাখতো। মাইক বা ফেরিওয়ালা দিয়ে পন্যের প্রচার করত।

রেডিও টেলিভেশন আবিস্কার হওয়ার পর তাদের বিভিন্ন পন্যের বিজ্ঞাপন রেডিও টেলিভেশনে দিয়ে প্রচার করত। 

এবাভেই আগে ব্যবসায়িক পন্য বা প্রডাক্ট বিক্রির জন্য মার্কেটিং করা হতো। কিন্তু কালক্রমে ইন্টারনেট আবিস্কার হওয়ার পর ব্যবসায়িরা তাদের পন্য প্রচারে ইন্টারনেটকে বেচে নেয়।

ইন্টারনেটের মাধ্যমে পন্যের প্রচার ঘটিয়ে সেই পন্য মানুষের কাছে বিক্রির করার যে কৌশল অবলম্বন করা হয় তাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলে।

Facebook Marketing কাকে বলে?


ফেসবুক মার্কেটিং বলতে কি বুঝ?

উপরের আলোচনা থেকে আপনি অবশ্য বঝে গেছেন যে ফেসবুক মার্কেটিং কি? । ফেববুকের মাধ্যেমে ব্যসমায়িক কোন পন্য বা সেবা ফেসবুক ব্যবহারকারীর নিকট প্রচার করাকে ফেসবুক মার্কেটিং বা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলে।

তবে ফেসবুক মার্কেটিংকে দু ভাগে ভাগ করা হয়। একটি হলো ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং অপরটি হলো পেইড অর্থাৎ টাকা খরচ করে ফেসবুক মার্কেটিং।

আপনি ফ্রি কিংবা পেইড অথবা উভয় পদ্ধতিতে মার্কেটিং করে আপনার পন্য বা সেবা প্রচার চালাতে পারেন।

ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং

ফেসবুকে কোন প্রকার খরচ ছাড়াই পন্যের প্রচার করাকে ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং বলে। এ মার্কেটিং করার জন্য আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামে একটি ফেসবুক পেজ খোলে সেই পেজের মাধ্যমে আপনার পন্যের প্রচার করতে পারেন।

আপনার পেজটির ফলোয়ার যদি অনেক বেশি হয় সেই ক্ষেত্রে আপনি দ্রুত লাভবান হবেন। এজন্য আপনার কোন টাকা খরচ করার প্রয়োজন নেই।

ফ্রি মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে আপনি বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করেও আপনা পন্যের প্রচার করতে পারেন। এছাড়াও ফেসবুক প্রোফাইল কিংবা ম্যাসেঞ্জার দিয়ে ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারেন খুব সহজেই।

সাধারণত ছোট খাটো ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো এ মার্কেটিং করে থাকে।

পেইড বা টাকা দিয়ে ফেসবুক মার্কেটিং

টাকা খরচ করে ফেসবুকে যে বিজ্ঞাপন দিয়ে পন্যের প্রচার করা হয় তাকে ফেসবুক মার্কেটিং বলে। যে কোন ধরণের বিজ্ঞাপন টাকার বিনিময়ে ফেসবুকে দিতে পারবেন।

ফেসবুকে যে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয় তা ব্যবহারকারীর নিউজফিডে স্পন্সরড পোস্ট হিসাবে শো হয এবং ফেসবুক এর ডান পাশে উপর কোনায় বিভিন্ন পন্যের ছবি বা অফার আকারে শো করে।

ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেয়ার জন্য একটি ফেসবুক পেজ প্রয়োজন হবে। ফেসবুক প্রোফাইলে বিজ্ঞাপন দেয়া যায় না। তাই আপনার ব্যবসার নামে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করে নিতে হবে আগে।

আপনার ব্যবসার ফেসবুক পেজ তৈরি হলে সেখানে আপনি আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন।

কেন ফেসবুক মার্কেটিং প্রয়োজন?

আপনার ব্যবসার জন্য কেন ফেসবুক মার্কেটিং প্রয়োজন তা নতুন করে বলার প্রয়োজন নেই বললেই আমার মনে হয়। আপনি অবশ্যই জানেন যে, বর্তমান সময়ে ১৩ বছরের শিশু থেকে শুরু করে ৭০ বছরের বৃদ্ধরাও এখন ফেসবুক চালাচ্ছে।

বর্তমানে ফেসবুকের প্রায় ২.২৭ বিলিয়ন সক্রিয় ব্যবহারকারী রয়েছে, যার মধ্যে প্রতিদিন প্রায় ১.৫ বিলিয়ন মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করছে।

এই কোটি কোটি মানুষের কাছে আপনার পন্যের প্রচার করা প্রয়োজন কিনা তা আপনি নিজেই বিবেচনা করুন।

পেইড ফেসবুক মার্কেটিং কেন করবেন?

আগেই জানতে পেরেছেন ফেসবুকের রয়েছে কোটি কোটি ব্যবহারকারী। এদের মধ্যে সবাই আপনার পন্য বা সেবা ক্রয় করবে না।

তাছাড়া সব এলাকার লোকও আপনার সেবা গ্রহণ নাও করতে পারে। আপনার ব্যবসা সেবা যদি নির্দিষ্ট এলাকায় হয়ে থাকে তাহলে শুধুমাত্র সেই এলাকার ফেসবুক ব্যবহারকারীর নিকট আপনার পন্য বা সেবা পৌছাতে হবে।

আর এই কাজটি আপনি ফেসবুক পেইড মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে সহজেই করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি নির্দিষ্ট বয়সের ব্যবহারকারীর নিকট সহজেই সেবা বা পন্য পৌছে দিতে পারেন।

একটা উদাহরণ দিলে বিষয়টা পরিস্কার হয়ে যাবে। ধরুন আপনার প্রডাক্ট বা সেবা শুধুমাত্র ১৬-২২ বয়সের ছেলেদের জন্য তৈরি করেছেন।

এই বয়সের ছেলেরাই শুধু আপনার পন্য বা সেবা ক্রয় করবে। তাহলে সব বয়সের মানুষের কাছে মার্কেটিং করে কোন লাভ হবে না। বরং টাকাই অযাথা খরচ হবে।

এজন্য আপনাকে শুধুমাত্র ১৬-২২ বয়সের ছেলেদের কাছে পন্য বা সেবাটি পৌছাতে হবে। আর এ কাজটি ফেসবুক পেইড মার্কেটিং এ খুব সহজেই করতে পারবেন।

আপনি ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেওয়ার সময় নির্দিষ্ট স্থান, বয়স, লিঙ্গ টার্গেট করে বিজ্ঞাপন দেন তাহলে ঐ টার্গটকৃত ব্যক্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যাক্তির নিকট বিজ্ঞাপন শো করবে না।

ফলে আপনি খুব কম খরচে এবং অল্প সময়ে লাভবান হতে পারবেন।

ফেসবুক পেইড মার্কেটিং এর সুবিধাগুলো কি কি?

ডিজিটাল মার্কেটিং জগতের সোশ্যাল মিডিয়ার মার্কেটিংয়ের ফেসবুক মার্কেটিং এ অনেক সুবিধা নিতে পারেন আপনার ব্যবসার জন্য।

আপনার ব্যবসা যদি ছোট পরিসরে হয তাহরে ফেসবুক মার্কেটিকে প্রধান মাধ্যম হিসাবে নিতে পারেন। এর সুবিধাগুলো হচ্ছে-
  • বাংলাদেশে ফেসবুকের প্রচুর পরিমান ব্যবহারকারী রয়েছে । তাই সহজেই ব্যবসা প্রচার করা যায়।
  • যে কোন স্থান, শহর, দেশ বা লোকাল এরিয়া এবং আগ্রহ আছে বাচাই করে এমন মানুষের কাছে বিজ্ঞাপন দেয়া যায়।
  • নির্ধারিত পন্যের জন্য বাচাই করা মানুষের কাছে পন্য পৌছে দেয়া সম্ভব।
  • বিভিন্ন বয়ষের মানুষকে টার্গেট করে মার্কেটিং করা যায়।
  • অন্যান্য মার্কেটিং খরচের তুলনায় ফেসবুকে অল্প খরছে বিজ্ঞাপন দেয়া যায়।
  • ইন্টানেটে ব্রান্ড তৈরি করার সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক।
  • ব্লগ কিংবা ওয়েবসাইট প্রচারের সহজ মাধ্যম হিসাবে ফেসবুকই সেরা।
ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে ফেসবুকে আপনি আরো অনেক সুবিধাই পাবেন। দিন যত যাবে ততই এর ব্যবহারকারী বৃদ্ধি পাবে। 

ফলে আপনি যদি ফেসবুকে আপনার ব্যবসার ব্যান্ড তৈরি করতে পারেন তাহলে আপনার জন্য ভবিষ্যতে ডিজিটাল মার্কেটিং করা অনেক সহজ হয়ে যাবে।

কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং (Facebook Marketing) করবেন?

ফেসবুকে মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে প্রথমেই আপনাকে আপনার ব্যবসার জন্য একটি পেজবুক পেজ তৈরি করে নিতে হবে। কিভাবে একটি সুন্দর ফেসবুক পেজ তৈরি করবেন তা জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ তৈরি করার ইনফোটি দেখুন।

এছাড়াও গুগলে সার্চ করেও এ বিষয়ে আপনি বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন। ফ্রি কিংবা পেইড উভয় ফেসবুক মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে ফেসবুক পেজ জরুরী।

ফেসবুকে ফ্রি মার্কেটিং কিভাবে করবেন?

ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ফেসবুক পেজে গ্রহকের উপকারে আসে এমন কিছু আর্টেকেল নিয়মমিত শেয়ার করুন নিয়মিত। আপনার পন্য বা সেবা সরাসরি প্রচার করতে যাবেন না।

আর্টিকেলের ভিতর এমন ভাবে পন্য প্রচার করুন যেন গ্রহক বুঝতে না পারে যে, আপনি শুধু পন্য বা সেবাটির জন্য আর্টিকেল শেয়ার করছেন।

এতে আপনার ফেসবুক পেজের ফলোয়ার অনেক বেরে যাবে এবং আপনার মার্কেটিং করা সহজ হয়ে যাবে।

বিভিন্ন বিষয় অনুযায়ী বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপের সদস্য হয়েও আপনার পন্য কৌশলে প্রচার করতে পারেন। এতে অনেক গ্রহক পেয়ে যাবেন।

ফ্রি মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে আপনাকে ধর্য ধরে আগাতে হবে। কেননা প্রথমেই আপনি অনেক গ্রহক পাবেন না। নিয়মিত পোস্ট শেয়ার করলে গ্রহকরা সেগুলো পড়তে আসবে।

আর তাতেই আপনার পন্য সম্পর্কে জানতে পারবে। পছন্দ হলে এখান থেকেই আপনাকে অর্ডার দিবে।

ফেসবুকে পেইড মার্কেটিং কিভাবে করবেন?

আগেই বলেছি ফেসবুক পেজ ছাড়া পেইড মার্কেটিং করা সম্ভব নয়। তারপরও আপনি ফেসবুক মার্কেটারদের সাথে চুক্তি করে আপনার পন্য প্রচার করতে পারেন।

এ ক্ষেত্রে মার্কেটাদের ফেসবুক পেজে আপনার পন্য প্রচার করবে বিনিময়ে তাদেরকে আপনি চুক্তিভিত্তিক বা কমিশন ভিত্তিক মূল্য পরিশোধ করবেন।

সবচেয়ে ভাল হচ্ছে নিজের ব্যবসার নামে ফেসবুক পেজ খুলে ফেসবুকের অ্যাড ম্যানেজারের সাহায্যে বিজ্ঞাপন দেওয়া।

এতে আপনার মনমত অডিয়েন্স টার্গেট করে বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন। এজন্য আপনার অনলাইনে টাকা পরিশোধের ব্যবস্থা থাকতে হবে।

বর্তমানে অনেক প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠেছে যেগুলো আপনার হয়ে ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে বিনিময়ে তারা কিছু অর্থ নিয়ে থাকে। আপনি এক্সপার্ট না হলে তাদের সাহায্য নিতে পারেন।

ফেসবুক মার্কেটিং দক্ষতা অর্জন করা

আপনি যদি ফেসবুক মার্কেটিং দক্ষতা অর্জন করেন তাহলে অনেকভাবেই ইনকাম করা আপনার জন্য সহজ হয়ে যাবে। কিন্তু ফেসবুক মার্কেটিং দক্ষতা বলতে আমাদের কাছে পরিস্কার না।

ফেসবুকে মার্কেটিং করতে কি কি দক্ষতা থাকা প্রয়োজন তা নিচে আলোচনা করা হলো। কেননা দক্ষতা ছাড়া মার্কেটিং করে সময় অপচয় আর অর্থ খরচ ছাড়া কোন লাভ হবে না।

ফেসবুক পেজের লিড সংগ্রহ করা

ফেসবুক মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে লিড সংগ্রহ করা গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষকরে যারা ফ্রি মার্কেটিং করতে চান তাদের জন্য লিড সংগ্রহ ছাড়া লাভ নাই। পেজের লাইক বৃদ্ধি করে আপনার ব্যবসার কোন লাভ হবে না।

মনে করুন আপনি ওজন কমানোর কোন ঔষধ বিক্রি করার জন্য ফেসবুক পেজ খুলছেন । সেখানে ২০০০০ লাইক রয়েছে, যার মধ্যে ১৯৯৯৯ জনই চিকন মানুষ লাইক করেছে।

অথচ তারা আপনা ঔষধ ক্রয় করবে না। মোটা নিয়ে যারা চিন্তিত তাদেরকেই আপনার পেজে নিয়ে আসতে হবে। এটাকেই লিড সংগ্রহ বলে।

লিড পরিচর্যা করা

আপনি যখন লিড সংগ্রহ করবেন তখন তাদের পরিচর্যাও করতে হবে। নেইলে আপনার লিড সংগ্রহে থাকবে না। তারা চলে যাবে অনত্রে। তাদেরকে পেজে ধরে রাখার জন্য আপনাকে মোটা থেকে চিকন হওয়ার সচেতন মূলক পোস্ট শেয়ার করতে হবে।

আপনার শেয়ার করা পোস্ট দেখে মোটা মানুষগুলো আপনার পেজে ভির করবে। এবং তাদের মধ্যে চিকন হওয়া প্রডাক্ট ক্রয় করার আগ্রহ তৈরি হবে।

মার্কেটিং এর ভাষায় এটাকে লিড নার্সিং বা লিড পরিচর্যা বলে।

সেলস ফানেল তৈরি করা

সাধারণত পোস্ট করার সময় আমরা প্রোডাক্টি ক্রয় করা সম্পর্কিত পোস্ট দেই। প্রোডাকের মূল্য, এটা কেন ভাল, কেন কেনা প্রয়োজন ইত্যাদি টাইপের পোস্ট দিয়ে থাকি।

কিন্তু এটা করতে থাকলে একটা সময় সেল বন্ধ হয়ে যাবে কিংবা ভাল ফল পাওয়া যায় না। অথচ প্রচুর পরিশ্রম করা হচ্ছে।

এজন্য আপনাকে লিড সংগ্রহ ও লিড নার্সিং করায় সব সময় মনোযোগ দিতে হবে। একটা উদাহরণ দেই। ধারণা একটা অনলাইন ব্লগ থেকে নেয়া হয়েছে।

বাসা বাড়িতে পানির ট্যাংকি রয়েছে। আপনি ঘরের ভিতর কল ছেড়ে দিয়েছেন। পানি পড়তে পড়তে একটা সময় ট্যাংকি খালি হয়ে যাবে।

যেমন কল ছেড়েছেন তেমনি নিয়মিত ট্যাংকিতে পানি উঠাবেন। মোটর ছাড়িয়ে ট্যাংকিতে পানি উঠাবেন, এটা হচ্ছে আপনার লিড সংগ্রহ। আবার ট্যাংকিতে পানি ভরছে এটা হচ্ছে লিড পরিচর্যা এবং পানি ছেড়েছেন, এটা হচ্ছে আপনার সেল শুরু হওয়া।

কনটেন্ট ডেভেলপ করা

কনটেন্ট বলতে ফেসবুক পেজে যা কিছু শেয়ার করা হবে তার সবই কনটেন্ট। ছবি, গ্রাফিক্স, আর্টিকেল, লিংক ইত্যাদি।

লিড সংগ্রহ, লিড নার্সিং ও সেলস ফানেল তৈরির চিন্তা করে কনটেন্ট তৈরি করতে হবে। এই বিষয়টা মাথায় রেখে আপনাকে কনটেন্ট ডেভেলপ করতে হবে।

সাম্ভাব্য কাস্টমারের আচরণ জেনে কনটেন্ট ডেভেলপ করা

কনটেন্ট ডেভেলপ করার জন্য আপনাকে কাস্টমারের ডাটা সংগ্রহ করে তাদের আচারণ বুঝে কনটেন্ট ডেভেলপ করতে হবে।

তাদের আচারণ বলতে তাদের বয়স, সেক্স, তাদরে ক্রয়ক্ষমতা, ক্রয় করার অভ্যাস ইত্যাদি জেনে আপনাকে আগাতে হবে।

সকল সাম্ভাব্য কাস্টমারের আচরণ অ্যানাইস করতে হবে।

নিউজ ফিড অ্যালগরিদম সম্পর্কে ভাল করে জানা

ফেসবুকে কোন ব্যবহারকারীর নিউজ ফিডে কোন পোস্ট দেখাবে সেটা একটা অ্যালগরিদম মেইনটেন্ট করে চলে। এটাকে EDGE Rank বলে।

এই অ্যালগরিদমের কারনেই আপনার সকল ফ্রেন্ডের পোস্ট আপনার নিউজ ফিডে দেখায় না। আবার আপনার পোস্টও সবাই দেখে না।

অ্যালগরিদম না জেনে মার্কেটিং করেও লাভ হবে না। আপনি হয়তো ১০০ গ্রুপে মার্কেটিং করছেন কিন্তু আপনার পোস্ট কেউ দেখতেছে না।

এটার কারণ হচ্ছে এই অ্যালগরিদম। তাই মার্কেটিং করার আগে অ্যালগরিদম ভাল করে জানুন। দেখবেন অল্প পরিশ্রমেই আপনি অনেক বেশি গ্রহক পেয়ে গেছেন।

শেষকথাঃ

আপনার কাছে ইনফোটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করে নিজের ওয়ালে রেখে দিন। ফলে পরবর্তী যে কোন সময় নিজের ওয়ালেই সহজেই এটি খুজে পাবেন। অন্যদের এ বিষয়ে জানাতে চাইলে শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন।

পরামর্শ কিংবা মতামত জানাতে আমাদের কমেন্ট করতে পারেন। মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে সাইটের মার্কেটিং ইনফোগুলো ফলো করুন।


Home BD info এর অন্যান্য ইনফো




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)


#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !