ডাচ বাংলা ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং বা রকেট মোবাইল ব্যাংকিং কোড নিয়ে আজকের ইনফো

বাংলাদেশে প্রথম যে প্রতিষ্ঠানটি মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করে সেই প্রতিষ্ঠানটির নাম হচ্ছে ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড। আজকের ইনফোটি DBBL Mobile Banking: ডাচ বাংলা ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং বা রকেট মোবাইল ব্যাংকিং কোড নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

রকেট ব্যবহার করার ক্ষেত্রে যে তথ্যগুলো বেশি প্রয়োজন পড়ে সেগুলো এই ইনফোতে ফোকাস করার চেষ্ঠা করা হবে। এছাড়াও যে কোন ইনফোতে আমরা অধিক তথ্য সংযুক্ত করার প্রচেষ্টা অব্যহত রাখি।

ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং

রকেট কি? 

রকেট বলতে আমরা সাধারণত আকাশে উড়া বিশেষ দ্রুত যানকে বুঝে থাকি। আকাশ যানগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দ্রুত চলে রকেট। কিন্তু এখানে যে রকেট এর কথা বলা হচ্ছে তা কোন যন্ত্র নয়।

ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং নাম পরিবর্তন করে রকেট নামকরণ করে তারা এটা বুঝাতে চেয়েছে যে, রকেটের মত দ্রুত ব্যাংকিং সেবা এখন আপনার হাতের মুঠোয়।

সুতরাং রকেট হচ্ছে ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবস্থার নাম। ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং দেশে প্রথম মোবাইল ব্যাংকিং হিসাবে পরিচিতি লাভ করে যা রকেট হিসাবে আমরা চিনি।

মোবাইল ব্যাংকিং কি? 

এক যুগ আগেও মোবাইল ব্যাংকিং সম্পর্কে মানুষের ধারণা তেমন ছিল না। মোবাইল ব্যাংকি কি এখন আর ব্যাখ্যা করে কাউকে বুঝানো লাগে না।

মোবাইল ব্যাংকিং বললেই তারা বুঝে নেয় বিকাশ, রকেট, নগদ, এমক্যাশ ইত্যাদি।

সুতরাং মোবাইল ব্যাংকিং হচ্ছে শাখাবিহীন ব্যাংকিং ব্যবস্থা, যার মাধ্যমে সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠির কাছে পৌঁছে যাবে দক্ষতার সাথে আর্থিক সেবা বা ব্যাংকিং সেবা।

মোবাইল প্রযুক্তি ব্যাবহার করে অর্থাৎ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ব্যাংকিং সেবা বা আর্থিক সেবা যেমন- টাকা জমা, টাকা পাঠানো, বেতন বিতরণ, টাকা উত্তোলণ, বৈদেশিক রেমিটেন্স গ্রহণ, িএটিএম থেকে টাকা উত্তোলণ, বিভিন্ন সেবা বা পণ্যের মূল্য পরিশোধ, অনলাইনে কেনা কাটার বিল প্রদান, বিভিন্ন ধরণের ইউটিলিটির বিল প্রদান করাই হলো মোবাইল ব্যাংকিং।

বর্তমানে প্রায় ব্যাংকগুলো মোবাইল ব্যাংকিং সেবা দিচ্ছে। যেমন- ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং সেবার নাম রকেট, ইসলামী ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবার নাম এম ক্যাশ ইত্যাদি।

আরো জানুন:





মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা সমূহ কি কি?

মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে অর্থকে ইলেকট্রনি অর্থে রুপান্তর করে ব্যাংকিং সেবা প্রদান করা হয়। এটা বাধাহীন ভাবে সারা দেশে এবং সুবিধা বঞ্চিত জনপদকে সহযোগিতা করবে।

মোবাইল ব্যাংকিং এর ফলে প্রত্যান্ত অঞ্চলগুলোর মানুষও ডিজিটাল ব্যাংকিং সুবিধা গ্রহণ করতে পারছে সহজেই।

দেশের যে কোন প্রান্ত থেকে ব্যাংকিং সেবা উপভোগ করা যায় এবং হাতের মুঠোয় নিরাপদ অর্থিক সেবা সর্বদা সাথেই থাকে।

মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা

  • প্রকৃতপক্ষে অনলাইন ব্যাংকিং সুবিধা প্রদান।
  • হাতের মুঠোয় ব্যাংকিং সেবা।
  • সারা দেশে যে কোন সময় যে কোন স্থানে ব্যাংকিং সেবা নিশ্চিত হওয়া।
  • মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধাজনক, সহজলভ্য এবং নিরাপদ লেনদেন ব্যবস্থা।
  • টাকা সঞ্চয়ের ক্ষেত্রে মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় বাড়াতে ভূমিকা রাখ।
  • এই ব্যবস্থার মাধ্যমে খুবই দ্রুত এবং আধুনিক ব্যাংকিং সেবায় প্রবেশের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে।
  • মোবাইল ব্যাংকিং অধিকতর নিরাপদ ও প্রতারণারোধক হিসাবে ইতেমধ্যে পরিচিতি লাভ করছে।

রকেট মোবাইল ব্যাংকিং থেকে কি কি সুবিধা গ্রহণ করা যবে?

মোবাইল ব্যাংকিং তথা ডিজিটাল ব্যাংকিংয়ের সকল সুবিধা রকেট এর মাধ্যমে গ্রহণ করতে পাবেরন। রকেট আপনাকে ব্যাংকিং সুবিধার পাশাপাশি যে সুবিধাগুলো প্রদান করে তা নিম্নরুপ:

* গ্রহক নিবন্ধন করার সুবিধা
* নগদ টাকা জমাদান
* নগদ টাকা উত্তোলন
* এটিএম মেশিনে ফ্রি উত্তোলনের সুবিধা
* মোবাইল রিজার্জ যে কোন সময়
* যে কোন ইউটিলিটি বিল পরিশোধ
* অনলাইনে কেনা কাটার পেমেন্ট প্রদান
* যে কোন প্রান্তে মুহুর্তে টাকা পাঠানো
* বেতন ভাতা বিতারণ
* সরকারী বিভিন্ন সেবার ফি প্রদান ইত্যাদি।


আরো জানুন:




কোথায় কিভাবে রকেট একাউান্ট খুলবেন?

আপনি যদি স্মার্টফোন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তাহলে ঘরে বসেই নিজের রকেট একাউন্ট খুলে নিতে পারেন নিজে নিজেই।

ঘরে বসে রকেট একাউন্ট খুলতে প্লে স্টোর কিংবা অ্যাপল স্টোর থেকে রকেট মোবাইল অ্যাপটি ইন্সটল করে নিতে হবে আগে। অ্যান্ড্রোয়েড ব্যবহারকারীরা প্লেস্টোর থেকে এবং অ্যাপল ব্যবহারকারীরা অ্যপল স্টোর থেকে আপডেট ভার্সন ব্যবহার করবেন।

আপনার স্মার্টফোন না থাকলে যে কোন DBBL এজেন্ট/ ডিবিবিএল ব্রাঞ্চ, ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং অফিস কিংবা যারা ডাস বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং ব্যানার প্রদর্শন করতে পারে এমন যে কোন বৈধ এজেন্ট এর কাছ থেকে সহজেই রকেট একাউন্ট খুলে নিতে পারেন।

Rocket একাউান্ট খোলার নিয়ম

আগেই উল্লেখ করা হয়েছে রকেট একাউন্ট আপনি কিভাবে খুলবেন? নিজে নিজে একাউন্ট খুলতে অবশ্যই আপনার একটি স্মার্টফোন লাগবে।

স্মার্টফোন না থাকলে আপনার আইডি কার্ড এবং (যে কোন একটি বাটনফোন হলেও হবে) মোবাইল নাম্বার নিয়ে নিকস্থ কোন এজেন্ট এর কাছে যান।

বলুন আমার একটি রকেট একাউন্ট খোলা প্রয়োজন । এজেন্ট আপনার এনআইডির ছবি উঠিয়ে রকেট একাউন্ট খুলে দিবে।

যে কোন ব্যাংক শাখা কিংবা ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং অফিস এ গিয়েও রকেট একাউন্ট খুলে নিতে পারেন।

এজেন্ট এর কাছ থেকে যেভাবে রকেট একাউন্ট খুলে নিবেন?

এজেন্টের কাছে আপনার এন আইডি কার্ড এর ফটোকপি ও ছবি জমা দিয়ে রকেট একাউন্ট খুলে নিতে পারেন।

এজেন্টের কাছে আপনার নথিপত্র দিলে এজেন্ট যাচাই করে নিবে। সঠিক হলে এজেন্টের মোবাইল মেনুতে আপনার নাম্বার উঠিয়ে রকেট একাউন্ট খুলে দিবে।

এজেন্ট নিবন্ধন করার জন্য মোবাইল মেনুতে গিয়ে আপনার নাম্বার টাইপ করলে আপনি IVR হতে একটি কল বা USSD Prompt Menu পাবেন। এখানে আপনার একাউন্টের পাসওয়ার্ড সেট করবেন।

অবশ্যই আপনাকে এই পাসওয়ার্ডটি (PIN) মনে রাখতে হবে। কেননা রকেট একাউন্টের চাবি হচ্ছে এই পিন নাম্বারটি। এই পিন নাম্বার কারো সাথে শেয়ার করবেন না। অত্যান্ত গোপনে সংরক্ষণ করবেন।

মনে রাখবেন কেউ আপনার পিন নাম্বার জেনে গেলে আপনার রকেট একাউন্ট থেকে টাকা চুরি করে নিতে পারে। তাই লেনদেন এ সজাগ থাকবেন এবং পিন গোপন রাখবেন।

রকেট একাউন্ট খুলতে পিন কেন প্রয়োজন হয়?

যে কোন মূল্যবান জিনিস বা সম্পদ অবশ্যই আপনি নিরাপত্তার সহিত সংরক্ষণ করে থাকেন। যেহেতু আপনার সম্পদ ইলেকট্রনিক ফান্ডে রুপান্তর হয়ে রকেট একাউন্টে জমা থাকবে তাই এটির নিরাপত্তার জন্য পাসওয়ার্ড বা পিন প্রয়োজন।

মনে করুন, মোবাইল ব্যাংক একাউন্ট হচ্ছে আপনার অর্থে গোডাউন্ট আর এর চাবি হচ্ছে আপনার সেট করা পিনটি। পিন ছাড়া অর্থে গোডাউন্ট এ প্রবেশ করতে পারবেন না।

আপনার রকেট একাউন্ট এর টাকা এজেন্ট কিংবা ATM মেশিন থেকে উত্তোলণ করতে পিন প্রয়োজন হবে। এটি আপনার আর্থিক লেনদেন নিশ্চিত এবং প্রতারণা প্রতিরোধ করবে।

সুতরাং মোবাইল ব্যাংকিং এর মূল চাবি হচ্ছে পিন বা পাসওয়ার্ড।

ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংক পিন গোপন রাখতে হবে কেন? 

Rocket একাউন্ট পাসওয়ার্ড বা পিন গোপনীয় রাখা জরুরী। কেননা রকেট একাউন্ট পরিচালনার ক্ষেত্রে সঠিক পিন ও মোবাইল নাম্বারের সমন্বয়ে একাউন্টে প্রবেশ করা সম্ভব।

সিস্টেম মোবাইল নাম্বার ও PIN যাচাই করে একাউন্টের মালিক কে সনাক্ত করে থাকে। তাই একাউন্ট মালিকানা নিশ্চিত করার জন্য পিন প্রয়োজন।

একাউন্টের পিন কেউ জেনে গেলে একাউন্টি ঝুকিপূর্ণ এবং প্রতারিত হওয়ার সম্ভবনা বেরে যায়। তাই অতি সতর্কতার সহিত পিন সংরক্ষণ করতে হবে। কোনভাবেই একাউন্টের পিন বা পাসওয়ার্ড কাউকে দেয়া যাবে না।

মোদ্দাকথা হচ্ছে, রকেট একাউন্টের নিরাপত্তার চাবিকাটি হচ্ছে এর পিন নাম্বার।

রকেট মোবাইল ব্যাংকিং কোড কি?

রকেট মোবাইল একাউন্টের মেনু কোড হচ্ছে *322# যে কোন মোবাইলে এই কোড ডায়াল করে রকেট একাউন্টে প্রবেশ করা যাবে।

রকেট মোবাইল ব্যাংকিং কোড ডায়াল করে ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং এর সকল সেবা উপভোগ করা যাবে।

অর্থাৎ ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং পরিচালনা করার জন্য রকেট মোবাইল ব্যাংকিং কোড *322# ডায়াল করতে হবে।

ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং লেনদেন সীমা কত?

DBBL Mobile Banking এর ক্ষেত্রে আপনি নির্ধারিত সীমা পর্যন্ত লেনদেন করতে পারবেন। এ সীমা ব্যাংকের অনুমোদনের মাধ্যমে বারিয়ে নিতে পারবেন।

বর্তমানে যে নিয়ম অনুসারে লেনদেন করতে পারবেন তা এখানে উল্লেখ করা হলো। তবে এটা পরিবর্তনশীল। ব্যাংক যে কোন সময় এই নিয়ম পরিবর্তন করতে পারে।

হালনাগাত লেনদেন সীমা সংক্রান্ত তথ্য জানতে ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে দেখুন। এই ইনফোটি লেখার সময় রকেট এর লেনদেন সীমা নিম্নরুপ ছিল:


** দৈনিক জমা = সর্বোচ্চ ৫ বার

** দৈনিক উত্তোলন = সর্বোচ্চ ৫ বার

** প্রতি মাসে জমা = সর্বোচ্চ ২০ বার

** প্রতিমাসে উত্তোলণ = সর্বোচ্চ ২০ বার

** প্রত্যেক লেনদেন সীমা = ৫০০০ টাকা

DBBL Mobile Banking এর ফি এবং সার্ভিস চার্জ 

এই ইনফোটি লিখার সময় ডিবিবিএল এর যে ফি এবং সার্ভিস চার্জ প্রযোজ্য ছিল তা এখানে তুলে ধরা হলো। ফি এবং সার্ভিস চার্জ ব্যাংক ইচ্ছা করলে যে কোন সময় পরিবর্তন করতে পারে।

ব্যাংক যদি মনে করে যে, তাদের সকল গ্রহককে সকল মোবাইল ব্যাংকিং সেবা বিনামূল্যে প্রদান করবে তাতেও কোন জটিলতা থাকবে না। বরং গ্রহকদের সুবিধা হবে।

রকেটের লেনদেন ফি ও সার্ভিস চার্জ

* রেজিস্ট্রেশন ফি: ফ্রি।

* ডিবিএল ব্রাঞ্চ, ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং অফিস, ফাস্ট ট্রাক, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ণ ব্যাংকের যে কোন শাখায় টাকা জমা ও উত্তোলণ ফি: ১০ টাকা।

* এজেন্ট পয়েন্ট থেকে টাকা জমা/উত্তোলণ ফি: জামা বা উত্তোলণকৃত টাকার ০.৯% বা ৫ টাকা; যেটি অধিকতর হবে সেটি প্রযোজ্য হবে।

* ATM বুথ তেকে টাকা উত্তোলণ: ফ্রি।

* স্টেটমেন্ট অনুসন্ধান: ৩ টাকা।

* মার্চেন্ট বিল পরিশোধ ফি: গ্রাহকের জন্য ফ্রি।

* মোবাইল টপ আপ (মোবাইল রিচার্জ): গ্রাহকের জন্য ফ্রি।

* বেতন বিতরণ: ফ্রি।

* ভাতা প্রদান: ফ্রি।

* রেমিট্যান্স গ্রহণ: ফ্রি।

* সেন্ট মানি/ P2P টাকা স্থানান্তর: ৫ টাকা।

* ব্যাংক একাউন্ট থেকে রকেট একাউন্টে টাকা স্থানান্তর: ফ্রি।

* রকেট একাউন্ট থেকে ব্যাংক একাউন্টে টাকা স্থানান্তর: ১% ।

* ভিসা বা মাস্টার কার্ড থেকে টাকা রকেট একাউন্টে এড করতে রকেট কোন চার্জ কাটবে না। তবে কার্ড থেকে টাকা এড করার জন্য মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হবে।

বিঃদ্রঃ ব্যাংকের নীতিমালা যে কোন সময় পরিবর্তন হলে এই তথ্য বাতিল বলে গণ্য হবে।

Rocket একাউন্টের ব্যালেন্স জানবেন কিভাবে?

DBBL Mobile Banking একাউন্ট ব্যালেন্স মোবাইল অপারেটর গুলোর সিমের ব্যালেন্স জানার মতই। তবে রকেট ব্যালেন্স জানতে অতিরিক্ত পিন নাম্বার দিতে হবে।

ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং কোড *322# ডায়াল করে ব্যালেন্স অনুসন্ধান অপশন বাচাই করে পিন নাম্বার দিলে আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স জানা যাবে।

যারা রকেট মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করেন তারা আরও সহজেই ব্যালেন্স জেনে নিতে পারেন অ্যাপ থেকেই।

অ্যাপ ওপেন করলেই রকেট একাউন্ট ব্যালেন্স কত টাকা জমা রয়েছে তা ব্যালেন্সবারে দেখা যাবে।

বিদেশ থেকে কিভাবে রকেট একাউন্টে রেমিট্যান্স পাঠাবন?

বাংলাদেশী প্রবাসীগণ যে কোন দেশ থেকে ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং রকেট একাউন্টে রেমিট্যান্স পাঠাতে পারবে সহজেই।

বিদেশে অবস্থানরত এক্সচেঞ্জ হাউজগুলো সুবিধাভোগী ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংক একাউন্টের বিপরীতে রেমিট্যান্স গ্রহণ করবে।

এক্সচেঞ্জ হাউজগুলো মোবাইল একাউন্ট নাম্বার ও টাকার পরিমানসহ একটি তালিকা ডাচ বাংলা ব্যাংকে পাঠাবে।

ডাচ বাংলা কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রত্যেক একাউন্টে নির্দিষ্ট পরিমান টাকা জমা করে দিবে। সুবিধাভোগী মোবাইল ব্যাংক একাউন্টে টাকা জমা হওয়ার সাথে সাথে একটি বার্তা পাবেন।

রেমিট্যান্স পাঠানোর নিয়ম:

রকেট একাউন্টে এই সুবিধা নিতে হলে বিদেশে অবস্থারত এক্সচেঞ্জ হাউজগুলোকে যে তথ্য দিতে হবে তা নিম্নরুপ:

** টাকার পরিমান

** যার কাছে পাঠাবেন তার নাম

** ব্যাংকের নাম (Dutch-Bangla Bank)

** রকেট একাউন্ট নাম্বার ( যে নাম্বারে ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং খোলা হয়ে সেই নাম্বারটি)

এই তথ্যগুলো অনুযায়ী এক্সচেঞ্জ হাউজ টাকা গ্রহণ করে ডাচ বাংলা ব্যাংকে পাঠাবে। ব্যাংক সেই অনুযায়ী রকেট একাউন্টে টাকা জমা করে দিবে।

টাকা রকেট একাউন্টে জমা হলে নিশ্চিত করণ একটি মেসেজ পাবেন। টাকা জমা নিশ্চিত হলে যে কোন ফাস্ট ট্রাক, এজেন্ট কিংবা ATM বুথ থেকে টাকা উত্তোলণ করতে পারবেন।

Home BD info এর অন্যান্য ইনফো জানুন




৪টি মন্তব্য:

  1. আমার রকেট একাউন্ট আছে কিন্তু এটা Not Active দেখাচ্ছে... কিভাবে ঠিক করব। প্লিজ হেল্প

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আপনার নিজ নামে যদি একাউন্ট খুলে থাকেন তাহলে ১৬২১৬ নাম্বারে ফোন দিয়ে একটিভ করে নিতে পারেন। আর যদি পরিবারের অন্য কোন সদস্যদের নামে রকেট একাউন্ট খোলা থাকে তাহলে তার এন আইডি কার্ড ও ছবিসহ যে কোন ডাসবাংলা ব্যাংকের শাখায় উপস্থিত হয়ে একটিভ করে নিতে পারবেন।

      মুছুন
  2. আমার একাউন্ট টা কার নামে খোলা আছে কিভাবে বুঝবো

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আপনার একাউন্ট কার নামে থাকবে এটা কি ধরণের প্রশ্ন? যদি এমন হয়ে থাকে যে প্রাপ্ত বয়স্ক নয় এমন ব্যাক্তি পরিবারের অন্য সদস্যের নামে একাউন্ট খুলে থাকে কিন্ত কার নামে খুলছে এখন মনে হচ্ছে না, তাহলে রকেটের মেনু *322# ডায়াল করে My Account এখান থেকে Account No. সিলেক্ট করলে একাউন্ট নং এবং একাউন্ট টাইটেলে একাউন্টধারীর নাম দেখাবে।

      মুছুন

Blogger দ্বারা পরিচালিত.