ভুমিকম্প ও ভুমিকম্পের সময় করণীয় কি? ভবনে থাকলে জানা জরুরী

0

আজকের ইনফোতে আলোচনা হবে Earthquake: ভুমিকম্প ও ভুমিকম্পের সময় করণীয় কি? বড় ধরণের ভুমিকম্প হলে বহু মানুষের প্রাণহানী ঘটে এবং সেই সাথে দেশের অনেক সম্পদও নষ্ট হয়ে যায়।

ভুমিকম্প হলে কি করবেন?
ছবি: ৯৯৯ জরুরী সেবা ওয়েবসােইটের

ভুমিকম্প কি?

ভুমিকম্প (Earthquake) কি লিখে গুগলে সার্চ দিলেই প্রথম যে উত্তরটি দেয় তা হচ্ছে উইকিপিডিয়ার একটি ওয়েব লিংক। সেখানে ভুমকম্পের সংজ্ঞা এভাবে দেয় আছে। ভূ-অভ্যন্তরে শীলায় পীড়নের জন্য যে শক্তির সঞ্চায় ঘটে,

সেই শক্তির হঠৎ মুক্তি ঘটলে ভূ-পৃষ্ঠ ক্ষণিকের জন্য কেঁপে ওঠে এবং

ভূ-ত্বকের কিছু অংশ আন্দলিত হয়। এই রুপ আকস্মিক ও ক্ষণস্থায়ী কম্পনকে ভুমিকম্প বলে।

ভুমিকম্পের কারণ

৯৯৯ জরুরী সেবার ওয়েবসাইটে ভুমিকম্প সম্পর্কে বলা হয়েছে, ভুমিকম্প হচ্ছে ভুমির কম্পন। ভূ-অভ্যন্তরে যখন একটি শিলা অন্য একটি শিলার উপরে উঠে আসে তখনি ভুমিকম্প সৃষ্টি হয়।

এর মূল কারণ হচ্ছে ভূ-অভ্যন্তরের স্তিত গ্যাস যখন ভু-পৃষ্টের ফাটল বা অগ্নেয় গিরির মুখ দিয়ে বেরিয়ে আসে তখন সেই গ্যাসের অবস্তানটি ফাকা হযে যায়। 

ফলে পৃথিবীর উপরি তলের চাপ ঐ ফাকা স্থানে গিয়ে পড়ে ভূপৃষ্টের ভারসাম্য বজায় রাখে। আর এ সময় ভূ-পৃষ্ঠ প্রবল বেগে কম্পনের সৃষ্টি হয় যাকে আমরা ভুমিকম্প বলি।

ভুমিকম্পের স্থায়িত্ব মাত্র কয়েক সেকেন্ড হয়ে থাকে তথাপিও এর মাত্র অনুযায়ী ব্যাপক প্রাণহানী ও ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা ঘটে।

ভুমিকম্পমাপার যন্ত্রের নাম রিখটার স্কেল । এটি দিয়ে ভুমি কম্পের মাত্রা মাপা হয়। সাম্প্রতিক ২৪-০৪-২০১৫ ইং তারিখে নেপালে ভূমিকম্প সৃষ্টি হয়। এতে হাজার হাজার মানুষের প্রাণহানী ঘটে।

নেপালের ভুমিকম্পে সম্পদের ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। রিকটার স্কেলের এই ভুমিকম্পের মাত্রা ছিল ৭.৯ । বাংলাদেশ, ভারত ও নেপালে এই ভুমিকম্পের অনুভুত হয়।


আরো জানুন:


ভুমিকম্প হলে কি করবেন বা সাবধানতাই কি কি করনীয়


** ভুমিকম্প হচ্ছে জানার সাথে সাথে ফাকা ও খোলা জায়গায় চলে যান।


** আপনি যদি ভুমিকম্পের সময় উচৃ বিল্ডিং এ অবস্থান করেন এবং বের হতে না পারেন তাহলে শক্ত কোন বীম বা সিড়ি নিচে অবস্থান করুন।


** মানসিক চাপ ও শ্বাস-প্রশ্বাস নিয়ন্ত্রণে রাখুন। কোন ভাবেই উত্তেজিত হবেন না।


** তাড়াহুড়া করে প্রবেশ কিংবা প্রস্থান পথে ভিড় করবেন না এবং ভিড় ঠেলে যাবেন না।


** বহুতল ভবনে এক জায়গায় অনেক মানুষ জমা হয়ে থাকবেন না এবং ভবন থেকে দ্রুত নেমে যাওয়ার সময় অপেক্ষাকৃত কম ঝাকুনি ‍দিয়ে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করুন।


** আপনার উপস্থিতি ও অবস্থান উদ্ধারকারীদের সাথে সাথে জানাতে আপনার সেল ফোনে অবশ্যই ফায়ার সার্ভিস কিংবা অন্যান্য উদ্ধারকারী দলের হেল্প লাইন সংরক্ষণ করুন এবং বিপদের সময়ে দ্রুত তাদেরকে জানাতে চেষ্টা করুন।


** স্নায়ুবিক দুর্বলতা বেশি হলে সাথে সাথে মাটিতে কাত হয়ে শুয়ে পড়ুন।

** ভুমিকম্পের সময় কোন প্রকার গুজব প্রচার করে জনমনে আরো বেশি চাঞ্চল্য সৃষ্টি করবেন না।


** এই সময় উচু বিল্ডিং থেকে লাফাতে যাবেন না । জীবনের জন্য এটা বড় ধরণের ঝুকি ।


** সম্ভব হয়ে মাথার উপর শক্ত করে বালিশ অথবা কোন শক্ত বস্ত যেমন - কাঠবোর্ড, নরম কাপড় চোপড়েরর কুন্ডলি ধরে রাখুন।


** স্বাভাবিক ভাবেই কাজগুলো করার চেষ্টা করুন।


তথ্যসুত্র: ৯৯৯ জরুরী সেবা


Home BD info এর অন্যান্য ইনফো জানুন

Tags

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)


#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !