জমিতে অগ্রক্রয় (Pre-emption) কি? এ বিষয়ে আইনে কি রয়েছে?

0

জমি-জমা নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছেন বহুদিন আগে থেকেই। জটিলাতা নিরসনের জন্য প্রচলিত আইনও রয়েছে। কিন্তু সেই আইন সম্পর্কে না জানার কারণে অনেকেই বিড়ম্বনায় ভোগে থাকেন। আজকের এই ইনফোটিতে আলোচনা করবো “জমিতে অগ্রক্রয় (Pre-emption) কি? এ বিষয়ে আইনে কি রয়েছে?” সম্পর্কে।

জমিতে অগ্রক্রয় (Pre-emption) কি? এ বিষয়ে আইনে কি রয়েছে?

আপনার শরিকানা জমির মধ্যে কোন শরিকের অংশ যদি শরিক ব্যতিত অন্য কোন পক্ষের কাছে জমির কোন অংশ বা অংশ বিশেষ বিক্রয় করে, তাহলে আপনি কিংবা অপর কোন শরিক বা সহ-শরিক উক্ত সম্পত্তির বিক্রয়মূল্য এবং নির্ধারিত হারে ক্ষতি পূরণ দিয়ে আদালতের মাধ্যমে উক্ত জমিটির পূনরায় ক্রয়করার অধিকার অর্জন করা যায়। এই বিষয়ে নিচে আলোচনা করা হলো।


অগ্রক্রয় (Pre-emption) কি?

এই সম্পর্কে ল্যান্ড বিডি মোবাইল অ্যাপে একটি সংজ্ঞা দেওয়া রয়েছে। সেটি হুহহু নিচে দেওয়া হলো:

”কোন জোতের কোন শরীক বা সহ-শরীকগন যদি ঐ জোতে অবস্থিত তার জমির কোনো অংশ বা অংশ-বিশেষ ঐ জোতের কোনো শরিক বা সহ-শরিক ব্যতিত অপর কোনো ব্যক্তির নিকট বিক্রি করে, তবে ঐ জোতের উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত জমির অপর কোনো শরিক বা সহ-শরিক উক্ত সম্পত্তির বিক্রয়মূল্য ও নির্ধারিত হারে ক্ষতিপূরন প্রদান করে আদালতের মাধ্যমে ঐ জোতের বিক্রয়কৃত জমিটি পূনরায় ক্রয় করার অধিকার অর্জন করতে পারে। সহ-শরিক কর্তৃক অর্জিত এ ধরনের অধিকারকে অগ্রক্রয় বা pre-emption বলে।”

আরো জানুন:

ওয়ারিশ সনদ কি? কোথায় কি জন্য দরকার হয়?

জমি বেদখল হলে কিভাবে উদ্ধার করবেন?

বিভিন্ন আকৃতির জমি পরিমাপ করবেন কিভাবে?

ই-পর্চা কি? ঘরে বসে জমির যে কোন পর্চা পাবেন কিভাবে?

দলিল রেজিস্টার করার আগে ও পরে করণীয় কি?

অনলাইনে নামজারি বা খারিজ করবেন কিভাবে?

ঘরে বসে জমির খাজনা পরিশোধ করবেন কিভাবে?


আদালতে অগ্রক্রয়ের মামলা করবেন কিভাবে?

 অগ্রক্রয় অর্থাৎ জমির একই জোতের কোন শরিক কিংবা সহ-শরিক তার অংশ কিংবা অংশবিশেষ শরিকানা ব্যতীত অপর কোনো ব্যক্তির কাছে বিক্রয় করেন, তাহলে ওই জোতের কোনো শরিক উক্ত জমির অধিকার অর্জন করার জন্য আদালতে মামলা করতে পারেন। আর এই মামলার মাধ্যমে বিক্রয় করা জমি পুনরায় আপনি ক্রয় করতে পারেন।

মামলা করার ক্ষেত্রে কিছু বিষয় আপনার মনে রাখতে হবে। যেমন- কৃষি জমির অগ্রক্রয়ের অধিকার সম্পর্কে রাষ্ট্রীয় অধিগ্রহণ প্রজাস্বত্ব আইন ১৯৫০ এর ৯৬ ধারায় বিস্তারিত বলা হয়েছে।

উক্ত আইনের (৯৬)() ধারা অনুযায়ী ৮৯ ধারার অধীন সহ-শরিককে নোটিশ দেওয়া হলে, নোটিশ পাবার তারিখ হতে পরবর্তি দুই মাসের মধ্যে এবং নোটিশ না পেলে হস্তান্তর সম্পর্কে জানার পরবর্তী দুই মাসের মধ্যে দেওয়ানী আদালতে অগ্রক্রয় মামলা দায়ের করতে হবে।

আদালতে আপনার আবেদন মঞ্জুর হলে পরবর্তী ৬০ দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রি অফিসে আবেদনকারীর বরাবরে দলিল রেজিস্ট্রেশন এর নির্দেশ দিবেন। ফলে শরিকানা অংশগ্রহণকারী আপনাকে কাবলা দলিল করে দিতে বাধ্য থাকিবে।

যেহেতু অগ্রক্রয়ের করার জন্য দেওয়ানী আদালতে মামলা দায়ের করতে হবে তাই আপনাকে একজন বিজ্ঞ আইনজীবীরা মাধ্যমে এই বিষয়ে বিস্তারিত পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন।

কেননা আদালতে অগ্রক্রয় মামলা দায়েরের জন্য ২৫% পার্সেন্ট ক্ষতি পূরণ এবং % পার্সেন্ট সরল সুদ জমা দিতে হবে।

 

অগ্রক্রয় সম্পর্কে আইনে কি বলা হয়েছে?

রাষ্ট্রীয় অধিগ্রহণ প্রজাস্বত্ব আইন ১৯৫০ এর ৯৬ ধারায় অগ্রক্রয় সম্পর্কে বিস্তারিত বলা হয়েছে। এই আইনের (৯৬)() ধারা অনুযায়ী ৮৯ ধারার অধীন সহ-শরিককে নোটিশ দেওয়া হলে, নোটিশ পাবার তারিখ হতে পরবর্তি দুই মাসের মধ্যে এবং নোটিশ না পেলে হস্তান্তর সম্পর্কে জানার পরবর্তী দুই মাসের মধ্যে দেওয়ানী আদালতে অগ্রক্রয় মামলা দায়ের করতে হবে।

উক্ত আইনের ৯৬()(ডি) ধারা অনুযায়ী, বিক্রয় দলিল রেজিস্ট্রেশন এর তিন বছর পর অগ্রক্রয় মামলা দায়ের করা যায় না।

উক্ত আইনের ৯৬() ধারা অনুযায়ী, আদালতে অগ্রক্রয় মামলা দায়েরের সময় ওই জোতের উত্তরাধিকার সূত্রে সকল শরিক কবলা ক্রেতাকে পক্ষ করতে হবে।

উক্ত আইনের ৯৬()() ধারা অনুযায়ী, জমির কবলা দলিলের উল্লেখিত মূল্য; ৯৬()(বি) ধারা অনুযায়ী ২৫% ক্ষতিপূরণ এবং ৯৬()(সি) ধারা অনুযায়ী % সরল সুদ জমা দিয়ে অগ্রক্রয় মামলা দায়ের করতে হবে।

উক্ত আইনের ৯৬()() ধারা অনুযায়ী, আদালতের অগ্রক্রয়ের আবেদন মঞ্জুর হলে সংশ্লিষ্ট আদালত কবলা দলিলের ক্রেতাকে পরবর্তী ৬০ দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রি অফিসে আবেদনকারীর বরাবরে দলিল রেজিস্ট্রেশন এর নির্দেশ দিবেন। ধারার দলিল রেজিস্ট্রেশন সকল শুল্ক, ফি কর মুক্ত হবে।

উক্ত আইনের ৯৬(১০) ধারা অনুযায়ী, কবলা দলিলের ক্রেতা ৬০ দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল রেজিস্ট্রি করে দিতে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট আদালত পরবর্তী ৬০ দিনের মধ্যে কবলা দলিল সম্পাদন রেজিস্ট্রেশন এর জন্য দাখিল করবেন।

 

শেষ কথা:

আশা করি, এই ইনফো থেকে অগ্রক্রয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। লেখাটি আপনার কাছে প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করে নিজের ওয়ালে রেখে দিন প্রয়োজনের সময় যাতে নিজের ওয়াল থেকে সহজেই খুঁজে নিতে পারেন।


অন্যান্য ইনফো দেখুন

আদালতের মাধ্যমে ওয়ারিশ সনদ নিবেন কিভাবে?

অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স করবেন কিভাবে?

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটবেন কিভাবে?

যে কোন প্রত্যায়ন পত্র ঘরে বসে পাবেন কিভাবে?

আমদানি রপ্তানি লাইসেন্স ঘরে বসে করবেন কিভাবে?


Tags

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)


#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !