চাকরিতে দ্রুত পদোন্নতি পেতে যা যা করণীয় বা দ্রুত প্রমোশন পাবেন কিভাবে?

কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতি পাওয়ার অর্থ হল আপনি প্রতিষ্ঠানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। আপনার কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ, কোম্পানি আপনার পদমর্যাদা এবং বেতন বৃদ্ধির জন্য পদক্ষেপ নেবে। এটাই প্রত্যাশিত। আজকের ইনফোটিতে “চাকরিতে দ্রুত পদোন্নতি পেতে যা যা করণীয় বা দ্রুত প্রমোশন পাবেন কিভাবে?” বিষয়ে আলোচনা করা হলো।

চাকরিতে দ্রুত পদোন্নতি পেতে যা যা করণীয় বা দ্রুত প্রমোশন পাবেন কিভাবে?
ছবি: সংগৃহিত

আপনি আপনার কাজ, অভিজ্ঞতা, দক্ষতা একত্রিত করে পদোন্নতির দাবি করতে পারেন। কিন্তু যদি দেখেন দীর্ঘদিন কাজ করার পরও আপনি স্বীকৃতি পাচ্ছেন না, তাহলে এটা নিয়ে ভাবার সময় এসেছে। দ্রুত পদোন্নতি পেতে আপনাকে যে বিষয়গুলি বিবেচনা করতে হবে তা নিচে তুলে ধরা হলো।


কোম্পানির কথা ভাবুন: আপনি যদি প্রমোশন চান তাহলে আপনাকে প্রথমে বুঝতে হবে কোম্পানি আপনার কাছ থেকে কী আশা করে। নিয়োগকর্তারা সবসময় চান তাদের কর্মীরা তাদের কোম্পানিতে বিশেষ অবদান রাখুক। তাই পদোন্নতি চাওয়ার আগে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে-


প্রমোশন পাওয়ার আগে কি কি বিষয় বিবেচনা করা উচিৎ?

আপনার দক্ষতা উন্নত করুন যাতে আপনি সবসময় কোম্পানির জন্য আরও ভাল করতে পারেন।

অফিসের সমস্ত বড় প্রকল্প বা বিশেষ কাজের সাথে নিজেকে পরিচয় করিয়ে দিন, যাতে আপনি আপনার দক্ষতা বাড়ানোর পাশাপাশি কোম্পানির জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন।


যাদের পদোন্নতি হয়েছে তাদের অনুসরণ করুন: 

প্রায় সব অফিসে সবাই একসঙ্গে পদোন্নতি পায় না। কয়েক বছরে আপনার অফিসে যারা পদোন্নতি পেয়েছেন তাদের অনুসরণ করুন। তারা কেন পদোন্নতি পেয়েছে তা বোঝার চেষ্টা করুন। সাধারণ-ব্যক্তিত্ব, চরিত্র বা দায়িত্বের মধ্যে তাদের বৈশিষ্ট্যগুলি চিহ্নিত করুন। তারপর নিজের মধ্যে সেই বৈশিষ্ট্যগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করুন।


বসের কাছ থেকে কাজের মূল্যায়ন নিন: 

অফিসে আপনার কাজের মূল্যায়ন হচ্ছে কিনা বা অফিসে আপনি কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা বোঝার জন্য বস বা নিয়োগকর্তার কাছ থেকে আপনার কাজের মূল্যায়ন নিন। অফিসে কাজের পরিধি দীর্ঘ হলে যে উদ্যোগগুলো নিতে পারেন-


পেশাদার পদ্ধতিতে প্রচারের বিষয়ে আপনার বসকে অবহিত করুন।


আপনার দায়িত্ব, অর্জন, দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতার একটি তালিকা তৈরি করুন।


বসকে জানান আপনার কাজ কিভাবে প্রতিষ্ঠানের উপকার করছে। সম্ভব হলে উদাহরণ দিন।


বসকে জানান যে আপনার ক্যারিয়ারকে আরও এগিয়ে নেওয়ার ইচ্ছা আছে। বসকে জানান যে আপনি একটি পদোন্নতির যোগ্য।


আপনাকে অফিসে স্বীকৃত হতে হবে: 

হয়তো আপনি অফিসে কঠোর পরিশ্রম করছেন। তবে অনেক ক্ষেত্রে কিছু মানুষের কাজের অবদানকে স্বীকৃতি দেওয়া হয় না। কেউ কেউ বসের চোখের আড়ালেই থেকে যায়। তাই আপনাকে যা করতে হবে তা হল কাজটি স্বীকৃত হওয়া এবং বসের নজরে পড়া। তাই নিচের পদক্ষেপগুলো নিন।

মিটিং বা কাজের মূল্যায়নের সময় বসের দিকে নজর রাখা জরুরি।

অন্যান্য বিভাগের কাজ স্বেচ্ছায় করার চেষ্টা করুন। নিশ্চিত করুন যে সংস্থাটি আপনার কাছ থেকে প্রতিটি উপায়ে উপকৃত হয়।

আপনার কাজ সম্পর্কে বস কী ভাবছেন তা নিয়মিত জানার চেষ্টা করুন। কীভাবে উন্নতি করা যায়, কীভাবে একটি বড় প্রকল্পে অবদান রাখতে হয় সে সম্পর্কে তার পরামর্শ নিন।

সর্বদা পরিষ্কার পোশাক পরুন, স্মার্ট হোন এবং অফিসে যান, যাতে বস এবং সহকর্মীদের আপনার সম্পর্কে ইতিবাচক ধারণা থাকে।


আপনার নেতৃত্বের গুণাবলী প্রদর্শন করুন: 

আপনি যদি উচ্চ পদে উন্নীত হন তবে আপনার নেতৃত্বের দক্ষতা অপরিহার্য হবে। সেক্ষেত্রে মনে রাখবেন-

আপনার সহকর্মীদের কাছে রোল মডেল হয়ে উঠুন। তাদের কাজের দক্ষতার জন্য তাদের কাছ থেকে সম্মান পান।

যখনই সুযোগ আসে আপনার বসকে বুঝতে দিন যে আপনি আপনার দলের সদস্যদের অনুপ্রাণিত করতে এবং নেতৃত্ব দিতে পারেন।

সর্বদা সমস্ত প্রকল্পে আপনার সর্বোত্তম ক্ষমতার জন্য কাজ করুন, যতক্ষণ পর্যন্ত কোম্পানি আপনাকে অপরিহার্য মনে করে। এতে প্রমোশন পাওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি।

অফিসে টিম লিডার হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করার জন্য আপনার প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন করার চেষ্টা করুন।


অফিসের সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধান করুন: 

প্রায় সব অফিসেই কিছু অভ্যন্তরীণ সমস্যা থাকে। কোম্পানির উৎপাদন বাধাগ্রস্ত করা সমস্যা চিহ্নিত করুন এবং সমাধান খুঁজুন। আপনার কাজ আপনাকে প্রচারে এগিয়ে রাখবে।

অফিসে আপনার ইতিবাচক উপস্থিতি গুরুত্বপূর্ণ: যারা কাজের চাপের মুখে শান্ত এবং ইতিবাচক, তারা যোগ্য নেতৃত্ব দিতে পারে। আপনি অন্য লোকেদের প্রতি যে সহায়তা প্রদান করেন তার সাথে আপনাকে আরও বৈষম্যমূলক হতে হবে।

এতে করে ভুল হওয়ার আশঙ্কা যেমন কমবে, তেমনি অফিসে ইতিবাচক ভাবমূর্তি তৈরি হবে। ফলে আপনি পদোন্নতি পেতে পারেন।


কর্মক্ষেত্রে সর্বদা নৈতিকতা বজায় রাখুন: 

পরিশেষে, চাকরির যোগ্যতা আপনার পদোন্নতির প্রধান উপায়, তাই কর্মক্ষেত্রে সর্বদা নৈতিকতা বজায় রাখুন। তাহলে কি মনে রাখবেন-

প্রতিদিন সময়ের মূল্য দিয়ে কাজ করতে হবে। মোবাইল ফোনে কথা বলে চা/কফির আড্ডায় জড়াতে পারবেন না।

অফিসের রাজনীতি বা গসিপিং থেকে নিজেকে সবসময় দূরে রাখুন।

আপনাকে প্রকল্পের কাজ, মিটিং বা কোম্পানির যে কোনো অনুষ্ঠানে সময়নিষ্ঠ হতে হবে।

দৈনন্দিন কাজ সময় ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে দক্ষতার সাথে করতে হবে।

আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যে আপনার কাজটি কোম্পানির কোনো ক্ষতির কারণ না হলেও সর্বদা লাভ ও সুবিধা নিয়ে আসে।


শেষকথাঃ

আপনি অন্য লোকেদের প্রতি যে সহায়তা প্রদান করেন তার সাথে আপনাকে আরও বৈষম্যমূলক হতে হবে। হয়তো আপনি এমন পরিস্থিতিতে আছেন। এই ক্ষেত্রে, আপনি যদি হতাশ হন। আপনাকে ক্রমাগত নিজেকে উদ্দীপিত করতে হবে। প্রতিদিন কাজের মাধ্যমে আপনার হতাশা দূর করতে হবে।

পদোন্নতি আপনার, আপনার পরিবারের এখন বিশেষ প্রয়োজন, এই অনুভূতিটি সর্বদা লালন করতে হবে। সে লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানে আপনার অবদান বাড়ান, আপনার দায়িত্ব সব সময় পালন করুন। প্রমোশন শীঘ্রই আপনার সাথে ধরা হবে।


আরো জানুন:

ঘরে বসে কারিগরি শিক্ষা গ্রহণ করবেন কিভাবে?

ক্যারিয়ার ডেভলপ করতে ৫ টি গুরুত্বপূর্ণ টিপস

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস বা বিসিএস ক্যাডার কি?

বিদেশে ক্যারিয়ার গড়তে করণীয় কি?


কোন মন্তব্য নেই:

Blogger দ্বারা পরিচালিত.