অনলাইনে ক্লিক করলেই কি টাকা ইনকাম হয়? মোবাইলে কি টাকা আয় করা সম্ভব?

ঘরে বসে ইনকাম করার সহজ উপায় কি? কিংবা কিভাবে খুব সহজেই অনলাইনে ইনকাম করা যায়? অথবা বিনা পরিশ্রমে কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায়? এই ধরণের অনেক প্রশ্ন অনেকের কাছে একটা কমন বিষয়। যারা এই রকম ধারণা করেন তাদেরকে বলছি- আমিও এক সময় এই রকম ধারণা করতাম। কিন্তু তাতে আমার অনেক সময় নষ্ট হয়ে গেছে। তাই যারা অনলাইনে ইনকাম করতে আগ্রহী তাদের জন্য আজকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইনফো শেয়ার করবো।

অনলাইনে ক্লিক করলেই কি টাকা ইনকাম হয়? মোবাইলে কি টাকা আয় করা সম্ভব?

বাংলাদেশে অনলাইনে আয় কথাটি যতটা জনপ্রিয় বাস্তবে কিন্তু অনলাইনে আয় করার মানুষ ততটাই কম। আমার জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনাই বলি- ২০১৫ সালে এসএসসি পরীক্ষার পর একটি বিজ্ঞাপন দেখি। বিজ্ঞাপনটির হেডিং ছিল ”ঘরে বসে ৩০ থেকে ৬০ হাজার টাকা ইনকাম করুন খুব সহজেই” বিজ্ঞাপনটি ছিল একটি কোচিং সেন্টারের।

পরে তাদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা আমার কাছ থেকে অগ্রিম ভর্তি হিসাবে ১০ হাজার টাকা চায়। তারা নাকি ইন্টারনেট থেকে আয়ের সকল কৌশল শিখিয়ে দিবে। আমার কাছে এই টাকা যোগার করা সম্ভব ছিল না। পরে ইন্টারনেটে টাকা ইনকামের বিভিন্ন আর্টিকেল পড়তে থাকি। ফলে এন্ড্রোয়েড অ্যাপ ডেভলপমেন্ট থেকে শুরু করে ওয়েবডেলপমেন্ট কাজে অনেকটা দক্ষতা অর্জন করে ফেলি। তবে আমার কিছু বন্ধু তারা অনলাইনে আয় করার জন্য ৫০/৬০ হাজার টাকা খরচ করে প্রতারিত হয়েছেন।

কেউ কেউ অবশ্য কিছু কাজ শিখতে পেরেছেন। তবে খরচের তুলনায় নগন্য। আপনার কোন কিছু শেখার আগ্রহ থাকলে এখন অনলাইনে অনেক আর্টিকেল পাবেন । এছাড়াও ইউটিউবের ভিডিও দেখে দেখে প্রয়োজনীয় বিষয়ে দক্ষ হতে পারেন।

অনেক কিছু শিখার পরও আমি লক্ষ করালাম যে, অনলাইনে ইনকাম করতে হলে আমাকে যথেষ্ঠ পরিশ্রম করতে হবে, তাছাড়া ইনকাম সম্ভব নয়। যেমন- ফ্রিল্যান্সিং এর যে কোন কাজ, ব্লগিং, রাইটিং, মার্কেটিং, ইউটিউবিং ইত্যাদি।

 

শুধুমাত্র ক্লিক করে কি অনলাইনে আয় করা যায়?

শুধু ক্লিক করে আয় করুন, কথাটা অনেকের কাছে অতি জনপ্রিয় এবং আয় করার জন্য অনেকে আগ্রহী। তবে আমি ব্যাক্তিগতভাবে সুপারিশ করি যায়া অনলাইনে আয় করতে চান কিংবা এখানে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে চান তারা অবশ্যই ক্লিক করে আয় করার চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলুন।

ক্লিক করে আয় করার অনেক সাইট রয়েছে। যেমন- ClixSense.com , BuxP এবং NeoBux ইত্যাদি। তবে এগুলো সাইনে বিভিন্ন এড ক্লিক, ভিডিও দেখা কিংবা গেম খেলে ইনকাম করতে হয়। আর এই আয়ের পরিমান খুবই নগন্য।

আপনি যদি সত্যিই নিজের পেশা অনলাইনে গড়তে চান তাহলে ব্লগিং কিংবা ইউটিউবিং ভিডিও তৈরি করে শেয়ার করার মতো পেশা গ্রহণ করতে পারেন। মনে রাখবেন, পরিশ্রম ছাড়া দুনিয়াতে কোনো কিছুই অর্জন করা সম্ভব নয়।

তাই অনলাইনে আয় করতে চাইলে পরিশ্রম করতে শিখুন। নিজের কাজ সঠিকভাবে করার চেষ্ঠা করুন। দেখবেন অল্প সময়ের মধ্যে সফল হতে শুরু করছেন।

 

মোবাইল দিয়ে কি ইনকাম করা সম্ভব?

আপনি যদি কোনো বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে পারেন তাহলে সেই দক্ষতা কাজে লাগিয়ে অনেক টাকা আয় করতে পারেন । এটা একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। আর যদি মনে করেন, কোন বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করা আমার পক্ষে সম্ভব নয় শুধুমাত্র মোবাইল টিপে টিপে ইনকাম করবো।

আপনার মনে এরকম ধারণা থাকলে আমার বিশ্বাস আপনি এক টাকাও ইনকাম করতে পারবেন না। কারণ যারা চুরি করে তারাও চুরি করতে অনেক দক্ষতা অর্জন করে চুরি করে ফলে তারা এই অবৈধ উপায়েও ইনকাম করে।

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করা যে সম্ভব নয় তা বলছি না। মোবাইল দিয়ে ক্লিক করে টাকা আয় করার মতো কিছু অ্যাপ পাবেন । তবে এই সকল অ্যাপের অধিকাংশগুলো ভূয়া। ইনকাম হলেও আপনাকে টাকা দিবে না কিংবা এই আয় দিয়ে আপনার ক্যারিয়ার চলবে না।

মোদ্দাকথা হচ্ছে মোবাইল দিয়ে ইনকাম করতে চাইলেও আপনাকে দক্ষতা অর্জন করে কাজে নামতে হবে। আর যদি ক্লিক সাইট কিংবা অ্যাপগুলো থেকে ইনকাম করার কথা ভাবেন তবে তা থেকে খুব বেশি আয় করতে পারবেন না। এতে আপনার মূল্যবান সময়ই নষ্ট হবে শুধু তা নয়। অনেক কিছু থেকে আপনি বঞ্চিত হতে পারেন।

 

অনলাইনে আমি কিভাবে অনেক টাকা আয় করতে পারি?

অনলাইনে আপনি দুইভাবে ইনকাম করতে পারেন। যেমন- প্রথমটি হচ্ছে ব্যবসা করে । অনলাইনে বর্তমানে হাজার রকমের ব্যবসা রয়েছে। সম্ভব হলে ই-কমার্সও শুরু করতে পারেন। ডিজিটাল প্লাটফরমে ব্যবসার পরিসর অনেক বড়। ট্রেডিং থেকে শুরু করে শপিং মল যে কোন ব্যবসা এখন অনলাইনে করা যায়। এছাড়াও ডিজিটাল ব্যবসাতো আছেই।

দ্বিতীয়তো ব্যবসা ছাড়াও অনেক পদ্ধতিতে অনলাইনে আয় করতে পারেন। যেমন-  ফ্রিল্যান্সিং, এখানে যে কোন কাজ করে আয় করতে পারেন। এমনকি ঘরে বসে যে কোন কোম্পানীতে চাকরিও করতে পারেন অনলাইনের মাধ্যমে।

আপনার কাজের দক্ষতার সাথে সাথে আয়ও বাড়তে শুরু হবে। বর্তমান সময়ে অনলাইনে আয়ের জনপ্রিয় উপায়গুলো হচ্ছে ব্লগিং, ইউটিউবিং, এফিলিয়েট মার্কেটিং, আর্টিকেল রাইটিং ইত্যাদি। এগুলোতে অনেক টাকা ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে।


অনলাইনে কি কি কাজ করা যায়?

আমরা সাধারণত অফিসিয়ালি যে সকল কাজ করে থাকি যেমন- ডাটা ইন্ট্রি, অফিস ম্যানেজমেন্ট, এনালাইসিস, মার্কেটিং ইত্যাদি। অনলাইনেও আপনি এই ধরণের সব রকম কাজ করতে পারবেন। এবং যে কোন বিষয়ে দক্ষতা থাকলে ওই বিষয়ে কোন ভার্চুয়াল কোম্পানীতে চাকরিও করতে পারেন।

এছাড়াও পেশাদার কাজ।যেমন- অ্যাপ ডেপলপমেন্ট, ওয়েব ডেপলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং ইত্যাদি কাজের প্রচুর চাহিদা রয়েছে অনলাইন জগতে।

আপনি যদি চান যে, অনলাইনে আপনি শিক্ষকতা করবেন তাও করতে পারেন। অথবা টিউশনি করিয়েও আয় করতে পারেন। এরকম অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে।যেমন- Vipkids.com

ভাষা অনুবাদের মতো কাজগুলো মার্কেটপ্লেসগুলোতে প্রচুর পরিমানে পাওয়া যায়। আপনার যদি অনুবাদ করার দক্ষতা ভাল থাকে তাহলে এটি দিয়েই শুরু করতে পারেন অনলাইন ইনকাম।

এক কথায় বলতে গেলে অনলাইনে সব ধরণের কাজ করা যায় এবং এর মাধ্যমে ভাল পরিমান আয়ও করা সম্ভব।

 

শেষকথাঃ

অনলাইনে আয় করার অনেক পদ্ধতি রয়েছে। তবে সবগুলো যে সবার জন্য সঠিক তা কিন্তু নয়। একেক জনের আগ্রহ ও দক্ষতা অনুযায়ী ক্ষেত্রগুলো বেচে নিয়ে ইনকাম করতে পারে।

অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়া সবার জন্য সম্ভব নাও হতে পারে। তবে মানুষের সবচেয়ে যেটি খুব বেশি প্রয়োজন তা হচ্ছে নিজের দক্ষতা। আপনি দক্ষতা অর্জন করতে পারলে অনলাইন কিংবা অফলাইন যেকোনো সেকটরে সফল হতে পারবেন।


কোন মন্তব্য নেই:

Blogger দ্বারা পরিচালিত.