The MoneyTizer AD Network: এডসেন্স এর বিকল্প হিসাবে ব্যবহার করতে পারেন এই এড নেটওয়ার্কটি

ওয়েবসাইট থেকে যারা আয় করে থাকেন কিংবা ব্লগিং পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চান তাদের জন্য আজকের ইনফোটি (The MoneyTizer AD Network) কাজে লাগতে পারে। নতুনদের অনেকেই গুগল এডসেন্স যুক্ত হয়ে ব্লগিং শুরু করেন। 

গুগলের নিয়ম ভঙ্গ করার কারণে এডসেন্স এ নিষিদ্ধ হয়ে যান। ফলে তার এডসেন্সের বিকল্প নেটওয়ার্ক খুজে থাকেন।

বর্তমানে অনেকগুলো এড নেটওয়ার্ক রয়েছে। তবে সবগুলো থেকে আয় করা সম্ভব হলেও সবগুলোর ইনকাম সমান হয় না। সাধারণত ইসিপিএম রেট যে নেটওয়ার্কগুলোর অনেক বেশি সেগুলো থেকে অনেক বেশি আয় করা সম্ভব হয়।

গুগল এডসেন্স এর মতই এই নেটওয়ার্ক সাইট এ সিপিএম রেট প্রায় সমান থাকে। সাইটের ভিজিটর অনেক বেশি হলে কয়েকদিন এই নেটওয়ার্কটি ব্যবহার করে দেখুন। ইনকাম মনমত না হলে ব্যবহার করা বাদ দিতে পারেন।

যারা গুগল এডসেন্স এর বিকল্প কিংবা আয় বাড়ানোর জন্য এডসেন্স এর সাথে অন্য নেটওয়ার্ক যুক্ত করতে চান তারা এই এড নেটওয়ার্কে সাথে যুক্ত হতে পারেন। তবে সাইটের ইউনিক ভিজিটর মাসে কমপক্ষে ১০ হাজার থাকতে হবে। এর কম ভিজিটর হলে অনুমোদন পাবেন না।


আরো জানুন> ওয়েবসাইটের আয় দ্বিগুণ বৃদ্ধি করার উপায়


The MoneyTizer AD Network: এডসেন্স এর বিকল্প হিসাবে ব্যবহার করতে পারেন এই এড নেটওয়ার্কটি

মনাটাইজার একাউন্ট সাইনআপ করা নিয়ম

প্রথমেই এখানে ক্লিক করে সাইন আপ করে নিন। সাইন আপ করা সম্পন্ন হলে প্রথমে আপনার ওয়েবসাইট যুক্ত করতে হবে।

Moneytizer Account Open

Sponsor code: 280884356b434dfb2949a53607935bd1

আপনার ওয়েবসাইট যুক্ত করার পর রিভিউয়ের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। অনুমোদন হলে আপনাকে ইমেইল করে জানিয়ে দেওয়া হবে।

সাইট অনুমোদন হলে কনফিগার করে নিতে হবে। আপনার সাইট ওয়াপ্রেস হলে কনফিগার করার জন্য এর ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিনটি ব্যবহার করতে পারেন।

এড প্লেসমেন্টসহ নানা সুবিধা পাবেন প্লাগিনটিতে।

এই নেটওয়ার্ক থেকে কত টাকা আয় করা সম্ভব?

আপনি যদি নতুন পাবলিশেয়ার হয়ে থাকেন তাহলে এমন প্রশ্ন আপনার জন্য অবাস্তব নয়। পাবলিশেয়ার যে কোন নেটওয়ার্ক থেকে আয় এর পরিমানটা নির্ভর করে আপনার সাইটের ভিজিটরের উপর।

আপনার সাইটের ভিজিটর যদি কোটি কোটি হয় তাহলে আপনার আয়ও হবে কোটি কোটি টাকা। আর যদি আপনার সাইটের কোন ভিজিটর না থাকে তাহলে আপনার আয় শূণ্য।

ভিজিটর ছাড়া এক টাকাও আয় করা সম্ভব নয় সাইট থেকে। এজন্য শুধু সাইট তৈরি করলেই হবে না। সাইটের ভিজিটর বারার জন্য নিয়মিত এসইও করতে হবে।

পেমেন্ট পদ্ধতি

এক সময় পেমেন্ট নিয়ে অনেক চিন্তা কিংবা ঝামেলা পোহাতে হয়েছে। এখন যে কোন দেশের টাকা সহজেই বিকাশ, রকেট একাউন্টে আনা যায়।

তবে এই সাইটি বাংলাদেশি পাবলিশেয়ারদের দুটি পদ্ধতিতে পেমেন্ট করে থাকে। পেপাল ও ওয়ার ট্রান্সফার এর মাধ্যেমে আপনা পেমেন্ট গ্রহণ করতে পারবেন।

পেপাল একাউন্ট আপনার না থাকলে বাংলাদেশের যে কোন ব্যাংক একাউন্টে ওয়ারট্রান্সফারের মাধ্যমে পেমেন্ট গ্রহণ করতে পারবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন

আপনার মার্কেটিং অভিজ্ঞতা থাকলে এফিলিয়েট লিংক মার্কেটিং করে আয় করতে পারবেন। আপনার এফিলিয়েট ইউজার থেকে কমিশন পাবেন।

আপনার ইউজার যত বেশি হবে কমিশনও তত বেশি পাবেন। কোন এফিলিয়েট লিংক থেকে সাইনআপ করলে আপনি ও যার লিংক থেকে একাউন্ট খুলেছেন উভয়েই বোনাস কাস্টমার হিসাবে সুবিধা পাবেন।


কোন মন্তব্য নেই:

Blogger দ্বারা পরিচালিত.